1. hmamanulislam@gmail.com : News Cox : News Cox
শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১, ০৫:০৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
রমজানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ইবাদত-বন্দেগি করুন : রাষ্ট্রপতি পবিত্র মাহে রমজানের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন নিউজ কক্সবিডির সম্পাদক আমানুল ইসলাম জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নে প্রবাসী মানব কল্যাণ সংগঠনের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ তিব্বতে বৃহত্তম বাঁধ বানাচ্ছে চীন, ভারতের উদ্বেগ মিয়ানমারের রাষ্ট্রায়ত্ত ‘জেমস এন্টারপ্রাইজ’কে কালো তালিকাভুক্ত করল যুক্তরাষ্ট্র কর্মহীনদের সহায়তায় ৫৭২ কোটি টাকা বরাদ্দ চকরিয়ায় এসএ পরিবহন কুরিয়ার সার্ভিস কার্যালয়ে অভিযান : ইয়াবা ও টাকাসহ যুবক আটক সদরের পাঁচটি ইউনিয়নের রেল লাইনের সংযোগ সড়কে দ্রুত ওভারব্রীজ নির্মাণ করার দাবী জানান জননেত্রী কাবেরী এদেশ আমার এদেশ জনতার -শিকড় বাংলাদেশের সহ- সাধারণ সম্পাদক আমানুল ইসলাম মামুনুল হকসহ হেফাজতের ১৭ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা

রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের কথাবার্তায় সংযমি হওয়া উচিত

  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

ইদানিং দেশের বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীদের কথাবার্তায় অসংলগ্নতা দেখা যাচ্ছে। কথায় কথায় প্রতিপক্ষকে ছোট করতে বা ঘায়েল করতে ব্যবহার করছে অশালীন বাক্য।কারো ব্যত্তিত্ব বা জনপ্রিয়তা সহ্য করতে না পেরে তাই করছেন কিছু নেতাকর্মী।একজন মানুষের দোষ গুন থাকতে পারে।তাই বলে কারো চরিত্র হরণ করে কথা বলা এটা কোন সভ্য জাতি করতে পারেনা।রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে এখন প্রতিহিংসা বিরাজমান।ব্যক্তি জীবনে সবার দোষ ত্রুটি থাকতে পারে।ব্যক্তিগত শত্রুতা ও থাকতে পারে।এটাকে রাজনৈতিক ভাবে মোকাবেলা করা আদৌ সমীচীন নই।রাজনৈতিক ময়দানে দেশের স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে আলোচনা হতে পারে।এখন রাজনৈতিক ময়দানে নই শুধু, টকশোতে পর্যন্ত আলোচকরা এ রকম কুঠো বাক্য ব্যবহার করে থাকেন।এক কথায় নোংরা মানসিকতা নিয়ে বিশেষ কাউকে খুশী করার জন্য এসমস্ত আচার ব্যবহার আমরা করে থাকি।আমরা কি একবার ও ভেবে দেখেছি পরবর্তী প্রজন্ম আমাদের কে নিয়ে কি মন্তব্য করছে।হয়তো-বা আগামীতে তারেক জিয়া নয়তো সজিব ওয়াজেদ জয় বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হবে।তাদের চরিত্র নিয়ে আমরা যে ভাবে তামাশা দেখাচ্ছি, বলছি,লিখছি পরবর্তী প্রজন্ম তাদের তা ই ভাববে।কে কয়টা বিয়ে করেছে,কার বউয়ের মাথায় কাপড় নেই,কে মদ খাই,আর কে কত দামী কাপড়চোপড় ব্যবহার করে সেকথা গুলো একান্তই ব্যক্তিগত।সভা সমাবেশে আমরা যখন এ কথা গুলো শুনি বড়ই কষ্ট লাগে।বঙ্গবন্ধু ও জিয়াউর রহমানের অনেক বক্তব্যের রেকড়িং শুনেছি অশ্লীল কোন বাক্য আমার কানে লাগনি।রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ পদধারী থেকে মন্ত্রী, এমপি ও দলের বিভিন্ন স্তরের নেতা কর্মীদের কথা ও বক্তব্যে শোনে মন হয় বাবার দিনের সম্পদ কেড়ে নিয়ে যাচ্ছে।প্রতিপক্ষ আমার বাপ দাদার দুশমন।দিন দিন দেশ উন্নত হচ্ছে কিন্তু আমাদের মানসিকতা নষ্ঠ হয়ে যাচ্ছে।আজ একটি রাজনৈতিক দল ক্ষমতায় আছে আগামী দিনে এই দল ক্ষমতায় না ও থাকতে পারে।আর ক্ষমতার বাইরে থাকা দলের নেতাদের ও এই সমস্ত রুচিহীন আচার ব্যবহার ত্যাগ করা উচিত।সতিনের ঘরের ছেলে মেয়েদের মত সম্পর্ক নই।উভয়ের মধ্যে ভ্রাতিৃত্ব পূর্ণ সম্পর্ক হওয়া সবার কাম্য। কথায় আছে ব্যবহারে বংশের পরিচয় এ ক্ষেত্রে ব্যবহারে দলের পরিচয় হওয়া অত্যন্ত জরুরী।
বর্তমানে রাজনৈতিক দলের নেতা কর্মীদের কথা বার্তা শুনলে সাধারণ মানুষ রাজনিতি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে।ভাল মানসিকতার মানুষ রাজনীতির ময়দানে আর পাওয়া যাবে না।এমনিতে আমাদের দেশের রাজনীতি এখন এক ধরনের সুবিধা বাদীদের হাতে চলে গেছে।দেশে এখন রাজনীতির নামে ব্যবসা চলছে।এক শ্রেণীর মানুষ রাজনীতিকে ঢাল হিসাবে ব্যবহার করছে।রাজনীতির নামে প্রতিপক্ষকে প্রতিনিয়ত হয়রানি করে যাচ্ছে।দলের পক্ষ থেকে তড়িৎ ব্যবস্থা গ্রহন না করলে পরবর্তীতে দলকে তার মাসুল দিতে হবে।সকল রাজনৈতিক দলের নেতা কর্মীদের সব ক্ষেত্রে সংযমী হওয়া দরকার মনে করি।

মোঃ সেলিম উদ্দিন

সভাপতি

জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলন(এনডিএম)

কক্সবাজার জেলা।

Share this Post in Your Social Media

এই ধরনের আরও খবর
Copyright © 2020, NewsCox. All rights reserved.
NewsCox developed by 5dollargraphics